মৃন্ময় ৭১

বসন্তের অর্চার্ডে ভালোবাসা ছুঁয়ে থাকে রক্ত ডালিম গায়
তুষার অধীনে ঘুমিয়ে পড়া শরীর;
সোনালী রোদ হয়ে জেগে উঠে তৃষ্ণায়।
বুকের উপর শুয়ে পরে সাদা বরফ
অভিলাষী উপস্থিতিতে তোমায় ভালোবেসে
পিকাসোর মতো তোমার দেহ এঁকে দিতে স্বাধ হয়!
ও আমার চোখের তারায় ভেসে থাকা জলপদ্ম
বলে দাও,
আমি তোমাকে কিভাবে ভালোবাসি?
আমি তোমাকে আবাদে-বিরোধে মাত্রারও বেশী ভালোবাসি
ঈশ্বর প্রতিকূলে রেখে চোখ বেঁধে দেই
বুকের চারপাশে পেরেক ঠুকে চক্রাকারে সীমানা গেড়ে নেই,
ঠান্ডা শীতল রাতে উঁচুতে আমার হৃদয় দোলে, তারপর
গ্রীষ্মের পাইন অধীনে কালো বাতাসে সে হৃদয় পুড়ে।
ও আমার নাসিকারন্ধ্রে বসে থাকা জলবায়ু;
অধীকার দখলে আমি তোমাকে বিশুদ্ধরূপে ভালোবাসি।
অণু থেকে তথ্য ফাঁসের অর্থ; বুঝিয়ে দেয় তোমার উপস্থিতি
শহরের ঝাঁজালো বাতির শ্বাসে নিভু নিভু দমকা হাওয়ায়,
তোমাকে বর্ণনার কোন শব্দ খুঁজে পাইনা।
তোমার দেবদূত ঐশ্বরিক সৌন্দর্য্য উপেক্ষা করে
কেবল একটি উজ্জ্বল রোদ মুখ খুঁজি!
লক্ষ্য করি, তোমার হাসি বরফের গায়ে উষ্ণতা ছেড়ে দেয়
তোমার বেখেয়ালী শ্বাস বাতাস, শরৎতের আহবান জানায়।
চিরকালের আকুল আকাঙ্ক্ষা নিয়ে তোমাকে ভালোবাসি!
ও আমার দুঃখ জলের লহরী;
বলে দাও, আমি তোমাকে কিভাবে ভালোবাসি?