মৃন্ময় ৭০

ও বাতাস! তুমি শুনে যাও
শহরের দেয়াল হতে আজ শোকের গান বেজে উঠো!
যে ছিল মিটিমিটি জ্বলে নিকষ আঁধারে
আদরে কি অনাদরে অপ্রাপ্তির বেড়াজালে চুপটি করে
আজ সে কোথাও নেই; কোথাও নেই।
শহুরে কোলাহলে বুজে যাওয়া সকাল সন্ধ্যা
বৃক্ষ তলে এক টুকরো মায়াবী ছায়া
শিশির হয়ে নোনাজল টুপটুপ;
সবুজের গায়ে নীল সুর তুলে কাঁদে!
ও বাতাস…
তুমি ছুঁয়ে যাও মলিন আকাশ
ওখানে আজ চাঁদের বুকে নিষ্ঠুর গ্রহণ
মানুষটির হাহাকার বিশাল শূন্যতা পেড়োয়
শুনে যাও অপ্রাপ্তির অভিশাপে,
বিলয়প্রাপ্ত অরণ্যে শঙ্খচিল কেমন ডুকরে ডুকরে কাঁদে!
একি পথে আজ কাদা-মাটি-জল
আমাদের কথোপকথনে মুখরিত রেস্তোরাঁ
স্বৈরী চিৎকারে বব মার্লি ছুঁড়ে দেয় প্রেম; মগজের কোষে
জন্মের দাগের মত গায়ে ভেসে উঠে আমাদের প্রণয়ের ব্যথা
ধূর্ত ক্ষুদার্ত চোখে মানুষটি খুঁজি বুকের ভাঁজে;
নিঃশ্বাসের কাছে
কোথাও নেই, কোথাও নেই!
ও বাতাস….বেহুলা বাতাস
পৃথিবীকে বলে দাও
আজ সে কোথাও নেই; কোথাও নেই।